বগুড়ায় খাতা দেরিতে দিয়ে আগে নেয়ার অভিযোগে দুই শিক্ষককে অব্যাহতি

মিরু হাসান বাপ্পী, বগুড়া প্রতিনিধি

বগুড়ার সোনাতলায় নির্দিষ্ট সময়ের পরে খাতা বিতরণ ও আগে উত্তোলনের অভিযোগে দুই শিক্ষককে পরীক্ষার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। রবিবার (১৪ নভেম্বর) দুপুরে সোনাতলা মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে তাদের অব্যাহতির নির্দেশ দেন সোনাতলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাদিয়া আফরিন।

অব্যাহতি প্রাপ্তরা হলেন- সবুজ সাথী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক আবুবক্কর সিদ্দিক এবং লুৎফর রহমান বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের লাইব্রেরিয়ান সাবু চৌধুরী।

সোনাতলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল করিম রেজা বলেন, মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজে খাতা দেওয়া নিয়ে একটি কক্ষে শিক্ষার্থী ও পরীক্ষকদের মাঝে সাময়িক সমস্যা দেখা দেয়। কক্ষটিতে অন্তত ২০ জন শিক্ষার্থী ছিল। এ ঘটনায় দুই শিক্ষককে অব্যাহতি দেন ইউএনও সাদিয়া আফরিন।

পরীক্ষার্থীদের অভিযোগ, পরীক্ষা শুরুতে খাতা দিতে দেরি করেন শিক্ষকরা। আবার নৈর্ব্যক্তিক পরীক্ষায় প্রায় ১০-১৫ মিনিট আগেই নিয়ে নেন। এতে করে অন্তত ২০ জন পরীক্ষার্থীকে বিপাকে পড়তে হয়েছে।

সোনাতলা মডেল উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মতিয়ার রহমান বলেন, ১০৩ নম্বর কক্ষে শিচারপাড়া উচ্চবিদ্যালয়, সোনাতলা পাইলট বালিকা উচ্চবিদ্যালয় ও হাবিবপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৪০ পরীক্ষার্থী অংশ নেন। হলের দায়িত্বরত দুই শিক্ষক সময়ের প্রতি যত্নবান না হয়ে নির্দিষ্ট সময়ের কয়েক মিনিট পরে খাতা সরবরাহ করেন। আবার নৈর্ব্যক্তিক উত্তরপত্র নির্দিষ্ট সময়ের ১০ মিনিট আগেই জমা নিয়ে নেন। অভিযুক্ত শিক্ষকরা বলেন, ঘড়ির সময় ঠিক না থাকায় এমনটা হয়েছে। ইচ্ছাকৃত ভাবে আমরা এটা করিনি।

এ বিষয়ে সোনাতলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাদিয়া আফরিন বলেন, বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করে দায়িত্বরত দুই শিক্ষককে পরীক্ষা হলের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া ওই হলের পরীক্ষার্থীদের অন্য হলে স্থানান্তর করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।।

শর্টলিংকঃ